শৌভিক বণিক
শৌভিক বণিক

ইদানীং অনন্ত এক শূন্যরূপ গ্রাস করে প্রতিনিয়ত। তবু তার প্রতিই যেন আগ্রহের মাত্রা বাড়ছে দিনকে দিন। জীবনের পথ ক্রমশ জটিল হয়ে উঠলেও বাস্তবের মুখোমুখি হতে ভয়। ভয় আমাকে আঁকড়ে ধরে। আর আমি শূন্যতায় বিলীন হতে থাকি।

মাঝে মাঝে আগ্রহহীন এক প্রেতাত্মা ভর করে আমার ভিতর। আর বিষাদ আমার আপনজন, খুবই আপনজন হয়ে উঠে দ্বিধাহীন ভাবে। দেহের ভিতরের রক্তক্ষরণ হয়ে চলে নিঃশব্দেই, দেখা যায় না। শুধু ক্ষয় হয়ে চলি নিয়তই। নিয়তি কোনও বিধান ছাড়াই আলোড়ন তুলে যায় রক্তে। ক্ষতবিক্ষত হতে থাকি, তবুও জড়িয়ে ধরি ঘাতক সেই আলপিনকেই। এও যেন আমার এক চিরায়ত উৎসব।

নিঃস্পৃহ হতে চেয়েও জড়িয়ে পড়ি নানান ঝুট ঝামেলায়। অবাঞ্ছিত পরিস্থিতির হই সম্মুখীন। আমি দ্বিধাগ্রস্থ হয়ে পড়ি। অথচ বিশ্বাস করুন এসবে আমার কোনও আগ্রহ নেই। পরিধি মাত্রাহীন সীমান্ত বরাবর জেগে থাকে, আর অতন্দ্রিত প্রহরীর মতো আমি আবেগে ভেসে বেড়াই।

কখনও নিজেকেই খুব অচেনা মনে হয়। তখন আগ্রহে জাগি আর নিজের শিকড়, নিজের অস্তিত্ব খুঁজতে বেড়িয়ে পড়ি। পাহাড়, জঙ্গল, নদীর কাছে মনখারাপ ভাগ করে শুশ্রূষায় জুড়িয়ে নিই নিজেকে।  এ যেন আমার প্রাণ সঞ্চারের হাতিয়ার। এই মিশেলে তৈরি হয় একটি সেতু, সৃষ্টি হয় গান।