দেবাঞ্জনা মুখার্জি ভৌমিক

পরের জন্মে

পরের জন্মে দেখা হলে
মনে রেখো,
এই গোলাপের তোড়ায় মন ভরান যাবে না।
পুকুরপাড়ে দাঁড়িয়ে বলব,
বেগুনী রঙের থোকা থোকা কচুরিপানা ফুল এনে দাও–
প্যান্ট গুটিয়ে কাদা জলে নেমে হিম সিম খেয়ে পারবে তো তুলে আনতে?

পরের জন্মে দেখা হলে
বলবই না ভালবাসি,
পেছন ফিরে তাকিয়েও দেখবো না আমার যাওয়ার পথে চেয়ে আছো নাকি..

আসবে তো হঠাৎ নিশ্চুপ পায়ে?
“এসে গেছি” বলে চমকে দিয়ে রাখবে কাঁধে হাত, মনে থাকবে ?

পরের জন্মে দেখা হলে অন্ধ হবো বেশ,
তোমার পাশে ঘিরে থাকা নারীদের দেখে হিংসা হবে না আর,
আমিতো দেখতেই পাবোনা,

ঘামের গন্ধ চিনে আসবে তো ঠিক ভিড় ভেঙে এগিয়ে ?

পরের জন্মে এসব কথা মনে থাকবে ?
এই কবিতার বই হাতে বসবে আবার ?
পড়তে পড়তে কিছু কি মনে পড়বে ?
কবিতা পড় অথবা না পড়াই থাক,

আমাকে পড়ে নিও পরের বার।