অ্যালবার্ট অশোক

কন্টেম্পোরারি ভিস্যুয়াল আর্ট নামের একটি বিখ্যাত ছবি আছে শিল্পী জাঁ মিচেল বাস্কিয়েটের বা বাস্কিয়ার। তাঁর জন্ম ব্রুকলিনে ১৯৬০ সালে। বাবা ও মা দু’জন দুই জাতির ও রাজ্যের। আজটেক কালচারের। ১৯৮০ সাল নাগাদ ম্যানহাটানের রাস্তায় পাংক কালচারের গ্রাফিতি আর্টিস্ট হিসাবে বাস্কিয়ার আত্মপ্রকাশ। পরে আর্ট গ্যালারীতে স্থান পান।

গ্রাফিত্তি বা গ্রাফিতি। কোনও কিছুর উপরে, সাধারণত দেওয়ালে, চলিত সমাজকে ব্যঙ্গ করে, বা কোনও ঘটনাকে দু-চার কথায় লেখা, লিপিবদ্ধ বা কোনও শ্লোগান বা কোনও চিত্র, কবিতা ইত্যাদি খোদাই বা রেখার মাধ্যমে প্রকাশ করাকে বলে। এই কাজ সাধারণত যার দেওয়ালে করা হয় তার কোন অনুমতি নেওয়া হয়না (ফলে এটা কোথাও অপরাধ ধরা হয়)। কিন্তু পাবলিক বা সাধারণের নজরে পড়বে বলেই স্থানটি বেছে নেওয়া হয়। বা দৃষ্টি আকর্ষণ করতে মোটা দাগের বা আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়াতে উপযুক্ত করে নেওয়া হয়। কখনও শুধু লেখার মাধ্যমে কখনও দেওয়ালে রং দিয়ে করা হয়। এই গ্রাফিতি প্রাচীনকাল থেকেই, মিশর, রোম প্রভৃতি শহরে দেখা গেছে।

বর্তমানে স্প্রে পেইন্ট ও মার্কার পেন ব্যবহৃত হয়। মূল শব্দটার উৎপত্তি ইতালীয় শব্দ the Italian word graffiato (scratched)

গ্রাফিতি হল প্রতিরোধ গড়ে তোলার এক ধরণের অভিব্যক্তি এবং ক্ষমতার বিরুদ্ধে সত্যি কথা বলে শৈল্পিক স্বাধীনতার প্রকাশ। আর এটাকেই বলে হিপহপ সংস্কৃতি। এই সংস্কৃতির একটি অংশ জাঁ মিশেল বাস্কিয়েট। ১৯৮০ সাল নাগাদ স্যামো নামে একটা আর্ট মুভমেন্ট নিয়ে এসেছিলেন আমেরিকান কালচারে, সঙ্গে ছিল আরেকজন শিল্পী নাম Al Diaz অল দিয়াজ, তাঁর বন্ধু। সারা ব্যবসায়িক ম্যানহাটন শহরের downtown Manhattan বাড়িগুলিতে তাদের গ্রাফিতি এঁকে সবার চোখে বা নজরে পড়ার জন্য দেওয়াল তাদের ট্যাগ SAMO© লিখে দিতেন। বাস্কিয়েটের আদর্শ শিল্পী ছিলেন অ্যান্ডি ওয়ারহল। ওয়ারহল পরবর্তী সময় বাস্কিয়েটকে প্রমোট করতে সাহায্য করেন ও তার প্রদর্শনী স্পন্সর করেন। তাঁর ছবি শুধু হিপহপ কালচার বা শহরের দেওয়ালে সীমাবদ্ধ থাকেনি, ছড়িয়ে পড়েছিল, আমেরিকার সকল ধরণের সংস্কৃতিতে। পোশাকে পরিচ্ছদে, গানে, নাটকে, সাহিত্যে, জাদুঘরে বড়বড় শিল্পপতিদের উৎপাদনের ব্র্যান্ডে যেমন incorporated into clothing brands like Uniqlo, Reebok, Billabong, Stance and Sean John.

An Untitled painting by Jean Michel Basquiat sold to Yusaku Maezawa for $110.5 million.

গত বছর তার একটা ছবি Untitled বিক্রি হয়েছিল একটা রেকর্ড দামে $110.5 million, যা কোনও আমেরিকার শিল্পী বা আফ্রিকা-আমেরিকায় জন্ম কোনও শিল্পীর হয়নি। ভাবুন আপনার লোভ লাগছে কিনা।

বাস্কিয়াকে কিন্তু আশীর দশকের কোনও বিস্ময়কর ঘটনা বা বিষয় ভাবা হয় না, রীতিমত পাবলো পিকাসো [Pablo] Picasso or an [Andy] Warhol ওয়ারহলের মতো শক্তিশালী শিল্পী হিসাবে ধরা হয়।

বাস্কিয়েট ও অল দিয়াজ তাঁদের গ্রাফিতি যখন কোনও দেওয়ালে করত তার নীচে একটা সিম্বল বসিয়ে দিত SAMO©, বলে, যার উচ্চারণ ইংরেজি Same-Oh-র মতো। ওরা আর্ট ও ডিজাইনের উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করত। ১৯৮০ সালে বাস্কিয়েটের বয়েস মাত্র ২০। তাঁরা ট্রেনে, বাসে, সাবওয়েতে ও ছোট পুস্তিকাতে তাঁদের গ্রাফিতির প্রকাশ শুরু করেছিল। বাস্কিয়েটের গ্রাফিতির মধ্যে ছিল ঘৃণা ও নীরস টোন।

সোহো হল ম্যানহাটানের একটি গন্তব্য স্থল যেখানে আর্ট গ্যালারি থেকে বুটিক ইত্যাদি কেনাকাটা করা যায়, সেখানকার এক খবরওয়ালা The SoHo News তাঁরা নজর করল শহরের দেওয়ালের গ্রাফিতিগুলি, ও খোঁজ নিল কারা এসব করছে। তাঁরা কিছু গ্রাফিতি প্রকাশ করল। তখন সেখানে গ্রাফিতির নীচে কারুর নাম থাকতো না। হয়তো কোন সঙ্গত কারণেই।

বাস্কিয়া আর অল দিয়াজেরা নানা নেশা করত। কড়া নেশা। মারিজুয়ানাকে বলত, দ্য সেইম ওল্ডশিট the same old shit, সেখান থেকে শুধু the same old, ও পরে শুধুই SAMO© বলত। আর এইভাবেই SAMO আন্দোলনের জন্ম। সোহো-র খবরওয়ালারা দেখল একই idiomatic phrases অনেক জায়গায়, এবং শেষে আবিষ্কার করল was a drug that could solve all problems. SOHO, the art world, and Yuppies were satirized with Olympian wit.

তাঁদের গ্রাফিতির লেখাগুলির শব্দবন্ধ থাকত– ১. SAMO© SAVES IDIOTS AND GONZOIDS. ২. SAMO©…4 MASS MEDIA MINDWASH, ৩. SAMO©…4 THE SO-CALLED AVANT-GARDE, ৪. SAMO as an alternative 2 playing art with the ‘radical chic’ sect on Daddy’s$funds এ ছাড়া অনেক কবিতাও থাকত।

এই ধরণের গ্রাফিতি, পিছনে সমাজের অনেককে ব্যঙ্গ করে, রীতিকে ব্যঙ্গ করে এক দিনে গোটা ৩০ বিল্ডিংয়ে অল দিয়াজ ও বাস্কিয়া গ্রাফিতি বানিয়ে যেত, আর লোকে অদ্ভুত সব কথা বার্তা পড়ে তাদের নজরে নিয়ে গেছিল এই সবের সৃষ্টি কর্তাকে। বাস্কিয়ার গ্রাফিতি অনেক শিল্পীর জন্ম দিয়েছিল যেমন Keith Haring, তিনি বাস্কিয়ার গ্রাফিতি দেখে খোঁজ করেন। ১৯৭৯ সালে তাঁর সঙ্গে দেখা করেন।

প্রথম দিকে কেউ গ্রাফিতিতে নাম ব্যবহার করত না, অল দিয়াজ সেটাই চাইত। বাস্কিয়া কিন্তু মুখে বলত এই গ্রাফিতির কোনও ভবিষ্যৎ নেই কিন্তু খুব প্রচার চাইত। কালক্রমে জাঁ মিশেল বাস্কিয়া গ্রাফিতি থেকে গ্যালারীতে ছবি প্রদর্শনীর সুযোগ পেল। বহু ভিস্যুয়াল আর্টিস্টের সঙ্গে আর্ট কলেজে পড়াশোনার সময় বা বাইরে গ্রাফিতির আড্ডায় নানা শিল্পীদের সঙ্গে পরিচিত হন। সবাই তার প্রশংসা করত। একটা সময় এল যখন তাঁর গ্রাফিতিতে কবিতার মতো লাইন এল ও স্যামো SAMO ট্যাগটি উঠে গেল।

তাঁর ছবিতে শিশুদের মতো হিজিবিজি দাগ কেটে একটা পেইন্টিং-এর আদল সৃষ্টি করেন ও এটাই তার সিগনেচার পেইন্টিং। তিনি ছিলেন একজন কবি-সহ অনেক শিল্পকর্মের মেধাবান পুরুষ।

A poet, musician, and graffiti prodigy in late 1970s New York, Jean Michel Basquiat had honed his signature painting style of obsessive scribbling, elusive symbols and diagrams, and mask-and-skull imagery by the time he was 20.

আমেরিকার ম্যানহাটানের ব্যবসায়িক অঞ্চলে তার ঘরে অতিরিক্ত নেশার জেরে of a heroin overdose at his downtown Manhattan apartment on Aug. 12, 1988, at the age of 27. তাঁর মৃত্যু হয় ১৯৮৮-র ১২ আগস্ট। তাঁর বয়স তখন মাত্র ২৭ বছর।

শেষ করছি এই বলে, মানুষের উন্নত মেধা না থাকলে, শিক্ষা সচেতনতা না থাকলে, শিল্প-সংস্কৃতি না বুঝলে, শুধু লোক দেখিয়ে, সারাজীবন পটুয়া থেকে যাবেন। আপনি কোনদিন শিল্প সৃষ্টি করতে পারবেন না। ছবি আঁকতে গেলে অ্যানাটমির জ্ঞান লাগে, কিন্তু অ্যানাটমি ছাড়াও ছবি আঁকা যায়। আপনারা মার্ক শ্যগালের ছবিগুলি, জোয়ান মিরো বা পল ক্লি-র ছবি, বা অন্যান্য বহু শিল্পীর ছবিতে অ্যানাটমি দেখতে পাবেন না।

আপনাকে এক দীর্ঘ সময় কোনও সঠিক শিল্পীর অধীনে কাজ করে বড় হতে হবে। যে বরিষ্ঠ শিল্পীরা কনটেম্পোরারি ছবির সম্পর্কে অজ্ঞ তেমন শিক্ষকের অধীনে থাকলে পটুয়া হবেন নিশ্চিত কিন্তু শিল্পী হতে পারবেন কিনা সন্দেহ আছে। বাস্কিয়া অ্যান্ডি ওয়ারহলকে তাঁর শিক্ষক ও আদর্শ মেনে ছিল। তার সম্পর্কে বড় হয়েছিল। সে অ্যান্ডি ওয়ারহলের মতোই সেরা শিল্পী হতে পেরেছিল।