11206000_1456295311328382_4631279951288620442_n

                                                                 রবeবার, ৩০.০৮.২০১৫, বর্ষ ১, সংখ্যা ২০

 

কেন এই পাতায় হঠাৎ পরির আগমন? কল্পনাকে প্রশ্রয় দেওয়া? নাহ, ফ্যান্টাসিকে আশ্রয় দেওয়ার জন্য  এই ‘পরি’র আগমন নয়৷ আসলে পরি মানেই বোধহয়  খানিকটা কল্পনা, খানিকটা রহস্য মেশানো এক জিনিস৷ যার অস্তিত্ব যে নেই, এও যেমন প্রমাণিত নয়, তেমনই সে যে নেই এ কথাও কেউ জোর দিয়ে বলতে পারবেন না৷ পরি যেন খানিকটা প্রহেলিকার মতো৷ ঠিক এই সময়টার মতো৷ এই যে সময়টায় আমাদের যাপন,  তা এই সুন্দর মনে হয় তো, এই বদলে যায় তার সব রঙ৷ এই মনে হয় বড় মনোরম, তো এই তা পালটে নেয় রূপ৷

রানা দাস সম্পাদক-কলকাতা24x7
রানা দাস
সম্পাদক-কলকাতা24×7

রূপকথার রাজ্যে পরির তো অবাধ বসবাস৷ আর সে রাজ্যের চাবিকাঠি যাদের কাছে, তারা হল ছোটরা৷ তারা বিশ্বাস করতে পারে  পরি সত্যিই আছে৷ পারে কেননা তাদেরআছে এক নিষ্কলুষ মনোজগৎ৷ বলাবাহুল্য সে জগৎকে আমরা অনেকদিনই হারিয়েছি৷ আজ আর কোনও কিছুই নিঃশর্তে বিশ্বাস করা যায় না৷ সামনে কোনও বিশ্বাসও নেই যা অবলম্বন করা যায়৷ছোটবেলার পরি রাজ্য হারিয়ে যাওয়া আর এই জমে ওঠা গ্নানি কোথাও যেন এক হয়ে যায়৷

এই সময় ধরে হাঁটতে হাঁটতে আমাদের অনেকেরই মনে হয়, কোনও এক কিছুর সন্ধানে চলেছি আমরা৷ যা খুঁজছি তাআছে কি না কে জানে৷ কিন্তু গন্তব্য আছে এই বিশ্বাসেই বেঁচে থাকার রসদ৷ ঠিক পরিদের জন্য আমাদের যে বিশ্বাস তোলা থাকে৷

এই সাতপাঁচ ভেবেই আজকের পরি-কথা৷

আপনাদের কেমন লাগল?

রানা দাস

সম্পাদক

কলকাতা ২৪x৭