11206000_1456295311328382_4631279951288620442_n

                                                                           রবeবার, ১৮.১০.২০১৫, বর্ষ ১, সংখ্যা ২৭

বছরকার অপেক্ষা শেষ৷ বাঙালির ঘরে পুজোর গন্ধ৷ পুজোর আনন্দের মুহূর্তরা মিশে যাচ্ছে বাতাসে৷ সে বাতাসের গন্ধ নিলেই যেন প্রাণে এসে ছোঁয়া দিচ্ছে উৎসবের লগন৷

উৎসব মানে মিলন৷ শুধু অনেক মানুষ তো নয়, অনেক মত, পথেরও মিলন৷ এ কথা প্রায় শিশুপাঠ্য চচনার সামিল হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু আজও আমরা, এই উৎসবে সামিল মানুষরা তা বুঝিনি৷ এই ক’দিনের দেখনদারি পেরিয়ে গেলে আবার যথারীতি বিভেদের

রানা দাস সম্পাদক-কলকাতা24x7
রানা দাস
সম্পাদক-কলকাতা24×7

রাজনীতিকেই বেঁচে থাকার হাতিয়ার করে তুলব আমরা৷ মুখে যাই বলি না কেন, এ জিনিস চলছে এবং চলবে৷ আর এই মরশুমে পাটভাঙা পোশাকে আমরা সব ভুলে যাওয়ার ভাণ করব৷

তৃতীয় বিশ্বের দেশ হিসেবে আমাদের আক্ষেপের শেষ নেই৷ অর্থের সংকটে আমরা কী হতে চেয়েও কী হতে পারি না, সে খতিয়ান অহরহ আমাদের কুরে থায়৷ অথচ এতবড় একচা পুজোর আয়োজনে এই যে কোটি কোটি টাকার খরচ, এ যদি উন্নয়নখাতে কাজে লাগাতে হত তাহলে বোধহয় আর পুজোয় সমাজসেবার জন্য আলাদা পুরস্কার রাখতে হত না৷ যদিও এ তিক্ত প্রসঙ্গে এবং উৎসব কেবলই আনন্দের৷

তবু এ আলো হাসি, এই আনন্দের ভিতরও কোথাও যেন প্রশ্নগুলো জেগে থাকেই৷ সে প্রশ্ন নিয়েই বছর বছর পুজো আসে৷ আমরাও মেতে উঠি৷ আসলে এই বোধহয় সেই অমোঘ প্রেম যা সব ভুলিয়ে দেয়৷ যা কোনও প্রশ্নকেই আমল দিতে দেয় না৷

সকলেই নিজের মতো করে পুজো ভাল কাটান৷