11206000_1456295311328382_4631279951288620442_n1-300x111

 

                                                                        রবeবার, ১৫.১১.২০১৫, বর্ষ ১, সংখ্যা ৩০

সন্ত্রাসের কবলে প্যারিসে যে গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে, আসুন সমবেদনা জানিয়ে, এই সংখ্যার শুরুতেই নীরবতা পালন করি৷

আসলে এমন কিছু মুহূর্ত আসে যা আমাদের নীরব করে দেয়৷ বাকরহিত করে দেয়৷ যেমন এই হত্যালীলা৷কবে কোন বিষগাছ রোপিত হয়েছিল, ইতিহাস নিশ্চয়ই তার দিনক্ষণ মনে রেখেছে৷ আজ তার পরিণতি যে গণহত্যার রক্ত মাখিয়ে দিল ইতিহাসকে নিঃসন্দেহে মানবসভ্যতার ইতিহাসে তা কালো দাগ৷

সন্ত্রাস যেমনই হোক তা নিন্দনীয়৷ হয়ত কারণ খুঁজতে গিয়ে আমরা পাব সেই ছোট ছোট অসহিষ্ণুতার বীজগুলিকে৷ আজ যা

রানা দাস সম্পাদক-কলকাতা24x7
রানা দাস
সম্পাদক-কলকাতা24×7

সারা বিশ্ব জুড়ে সন্ত্রাসের মহীরুহের জন্ম দিয়েছে৷ আমাদের দেশেও সাম্প্রতিক অতীতে অসহিষ্ণুতা নিয়ে আলোড়ন উঠেছে৷ কাণ্ড অপেক্ষা শাখাপ্রশাখা নিয়েই টানাটানি হয়েছে বিস্তর৷ দলীয় রাজনীতির খেলা ফুরোলে ধীরে ধীরে এ ইস্যুও ধামাচাপা পড়ে যাবে৷ মিডিয়া থেকে সাধারণ মানুষ মেতে উঠবেন অন্য ঘটনায়৷ কিন্তু আগুন যা থাকার থেকেই গেল৷ সন্ত্রাসকে কঠোরভাবে দমন করতে হবে আবার দেশের বহুত্ববাদী চরিত্রটিকেও বজায় রাখতে হবে-এর অন্যথা নেই৷ কিন্তু এই দুয়ের ভারসাম্যহীনতাই আমাদের মাঝেমধ্যে সভ্য থেকে অসভ্যের দিকে ঠেলে দেয়৷ তখন আবার নতুন করে প্রশ্ন জাগে, এ কোন শতাব্দী? এ আলো কি আসলে অন্ধকার?

প্যারিসের রক্তস্রোত আজ আমাদের শিরদাঁড়ায় যে ঠাণ্ডা স্রোত বইয়ে দিল, তা কোনওভাবে কোনও দেশেই কাম্য নয়৷ আর তাই যে অসহিষ্ণুতা আজ আমাদের বিব্রত করছে, তাকে কোনওভাবে উপেক্ষা করাও উচিত নয়৷ কে জানে বিষবৃক্ষে কোন ফল ফলে! তবে সেই অসহিষ্ণুতা মেটানোও তো শুরু করতে হবে নিজেদের থেকেই৷ আসুন, সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি সেই প্রক্রিয়াই বরং শুরু করি৷

শান্তি আসুক৷

সম্পাদক

কলকাতা ২৪x৭